ঝালকাঠিতে যুবলীগ নেতাসহ দুইজনের লাশ উদ্ধার

জেলা প্রতিনিধি | ১৬:১৫, জুলাই ০৮ ২০১৯ মিনিট

ঝালকাঠির নলছিটি ও রাজাপুর থেকে যুবলীগ নেতাসহ দুইজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার সকালে নলছিটি উপজেলার নলবুনিয়া গ্রামের বাড়ির কাছে মাঠ থেকে যুবলীগ নেতা বেল্লাল হাওলাদারের (৪৫) লাশ উদ্ধার করা হয়। সে সুবিদপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও স্থানীয় কাশেম হাওলাদারের ছেলে। পুলিশ ও তাঁর স্বজনরা জানায়, রবিবার বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর সে নিখাঁজ ছিল। পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুজির পরে বাড়ির কাছে একটি মাঠের মধ্যে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। প্রতিবেশী ফিরোজ খানের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ ছিল বেল্লাল হাওলাদারের। গত ১৫ জানুয়ারি বেল্লাল হাওলাদারকে প্রতিবেশীরা কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা করে। আহত বেল্লাল ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা নিয়ে সম্প্রতি গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসে। এ ঘটনার জের ধরে বেল্লালকে হত্যা করে লাশ মাঠের মধ্যে ফেলে দেওয়া হয়েছে বলে নিহতের ভাই গোলাম মোস্তফা অভিযোগ করেন। নলছিটি থানার ওসি মো. সাখাওয়াত হোসেন বলেন, লাশ মাঠের মধ্যে পানিতে পড়া ছিল। শুনেছি ওনি অসুস্থ ছিলেন। মাঝে মধ্যে জ্ঞান হারিয়ে পড়ে যেতেন। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় বেল্লালের স্বজনদের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এদিকে রাজাপুর উপজেলার গোপালপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে সোমবার দুপুরে মো. সৈয়দ আলী (৬০) নামে এক বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সৈয়দ আলী দীর্ঘদিন ধরে গোপালপুর গ্রামের দুলাল সিকদারের বাড়ি দেখাশুনার দায়িত্বে ছিলেন। তিনি একাই ওই বাড়িতে বসবাস করতেন। সোমবার সকালে স্থানীয় শফিকুল ইসলাম নামে এক যুবক টিউবয়েলের পানি আনতে বাড়ির মধ্যে গেলে সৈয়দ আলীকে ঘরের পাশে পড়ে থাকতে দেখে লোকজন খবর দেয়। পরে পুলিশে খবর পেয়ে সেখান থেকে লাশ উদ্ধার করে। তবে কখন কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে সঠিক কারন এখনো জানতে পারেনি পুলিশ। লাশ ময়না তদন্তের জন্য ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজাপুর থানার ওসি মো. জাহিদ হোসেন। খবর পেয়ে ঝালকাঠির সহকারি পুলিশ সুপার (রাজাপুর-কাঁঠালিয়া সার্কেল) মো. শাখাওয়াত হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।