চামড়ার মূল্য ধ্বসের পরও রপ্তানির বিরোধিতা ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের

ন্যাশনাল ডেস্ক | ১৩:৩০, আগস্ট ১৪ ২০১৯ মিনিট

কোরবানির পশুর চামড়া বিক্রিতে ধস নামলেও কাঁচা চামড়া রপ্তানিতে সরকারি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছে বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন। তাদের দাবি, এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে দেশীয় শিল্পে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। বুধবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ এমন দাবি করেন। এসময় তিনি বলেন, সরকার নির্ধারিত মূল্যে কাঁচা চামড়া ক্রয় না করার বিষয়টি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। এছাড়া লবণ দিয়ে চামড়া সংরক্ষণের জন্য মৌসুমী ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান শাহীন আহমেদ। তিনি বলেন, আগামী ২০ আগস্ট থেকে নিজস্ব প্রতিনিধির মাধ্যমে নির্ধারিত দরেই লবণযুক্ত চামড়া সংরক্ষণ করবে ট্যানারি মালিকরা। এই কার্যক্রম চলবে আগামী দুই মাস। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, চামড়া শিল্পনগরী কমপ্লায়েন্স না হওয়ায় বিদেশি ক্রেতাদের আকৃষ্ট করা সম্ভব হচ্ছে না। কাঁচা চামড়া রপ্তানির সুযোগ দিলে ৭ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ ঝুঁকির মুখে পড়বে। প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জীবিকা সংকটে পড়বে ১০ লাখ মানুষ। প্রসঙ্গত, কোরবানির পশুর চামড়া বিক্রি হচ্ছে না এবং চামড়া বিক্রি করতে না পেরে অনেকে সেগুলো মাটিতে পুঁতে ফেলছেন- গণমাধ্যমের এমন প্রতিবেদনের মধ্যেই মঙ্গলবার চামড়া রপ্তানির সিদ্ধান্তের কথা জানায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশীয় বাজারে ভালো দাম না পেলে কাঁচা চামড়া রপ্তানি করা হবে। এজন্য চামড়া প্রক্রিয়াজাতে মৌসুমী ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা করতে বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়।