যৌনকেলেঙ্কারি: জামালপুরের ডিসি ওএসডি

ন্যাশনাল ডেস্ক | ১৩:১৭, আগস্ট ২৫ ২০১৯ মিনিট

নারী সহকর্মীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ মূহূর্তের ভিডিও প্রকাশের জেরে জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরকে ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) করা হয়েছে। রোববার (২৫ আগস্ট) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে প্রজ্ঞাপনে জামালপুরের ডিসি জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (উপসচিব) হিসেবে বদলির আদেশ দেওয়া হয়। এতে বলা হয়, জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে। প্রজ্ঞাপনটিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব এবিএম ইফতেখারুল ইসলাম খন্দকারের সাক্ষর রয়েছে। এর আগে শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় গণমাধ্যমকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরের বিরুদ্ধে সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে এনেছি। আগামীকাল (রোববার) তাকে ওএসডি করে আদেশ জারি করা হবে। সেখানে (জামালপুর) নতুন একজন যোগ দেবেন। এর আগে গত ২২ আগস্ট রাতে খন্দকার সোহেল আহমেদ নামে একটি ফেসবুক আইডি থেকে জামালপুরের জেলা প্রশাসকের আপত্তিকর ভিডিওটি পোস্ট কর হয়। যা পরবর্তিতে মুছে ফেলা হলেও তার আগেই ফেসবুক এবং মেসেঞ্জারের বিভিন্ন গ্রুপে তা ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওটিতে ডিসি আহমেদ কবীরের সঙ্গে তার অফিসের এক নারীকর্মীকে অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায়। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে বিষয়টিকে সাজানো দাবি করেছেন জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর। ওই ঘটনায় জামালপুরের মানুষের মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, চাকরির বিধি অনুযায়ী অন্যান্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে তার (ডিসি আহমেদ কবীর) বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর আগে শনিবার সকালে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (জেলা ও মাঠপ্রশাসন অনুবিভাগ) আ. গাফফার খান গণমাধ্যমকে জানান, ডিসির অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছড়িয়ে পড়া ভিডিওটির তদন্ত করবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। বিভাগের কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন। অফিস খুললে বিষয়টি তদন্তের জন্য কমিটি গঠন করবে মাঠ প্রশাসনের দেখভালের দায়িত্ব থাকা মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।