ভান্ডারিয়ায় বেওয়ারিশ কুকুরের উৎপাতে আতঙ্কিত মানুষ

উপজেলা প্রতিনিধি | ১২:৪৪, সেপ্টেম্বর ১৪ ২০১৯ মিনিট

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া পৌর শহরে বে-ওয়ারিশ কুকুরের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে। শহরে বে-ওয়ারিশ কুকুরেরা দল বেঁধে উৎপাতে স্কুল, কলেজের শিক্ষার্থীসহ পথচারীদের দিনভর আতঙ্ক নিয়ে সাবধানে চলাফেরা করতে হচ্ছে। স্থানীয়দের সূত্রে জানাগেছে, গত এক সপ্তাহে বে-ওয়ারিশ কুকুরের কামড়ে পাঁচজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কুকুরের কামড়ে পৌর শহরের দক্ষিণ শিয়ালকাঠী মহল্লাসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে পাঁচ ব্যক্তি কুকুরের কামড়ে আহত হয়েছেন। পৌর শহরের বাসিন্দা প্রধান শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলাম পলাশ, দিন মজুর আব্দুস ছালাম, শিশু আব্দুল্লাহ, গৃহীনি হেলেনা বেগম এবং বৃদ্ধ আবদুল জলিল কুকুরের আক্রমনের শিকার হন। আহতরা ভা-ারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লে¬ক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। ভান্ডারিয়া পৌর শহরে বে-ওয়ারিশ কুকুর নিধনে কোন কার্যকর উদ্যোগ না থাকায় শহর জুড়ে কুকুরের নির্ভিঘ্নে উৎপাত বেড়েই চলছে। অপরদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কুকুরের কামড়ের কোন ভ্যাকসিন না থাকায় আক্রান্ত ব্যক্তিরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন। তাদের চড়া মূল্যে জেলা ও বিভাগীয় শহর হতে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে হচ্ছে। পৌর শহর ব্যসায়ী মোঃ শাহাদৎ হোসাইন জানান,শহরে বে-ওয়ারিশ কুকুরের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে। শহরের মধ্যে কুকুর প্রতিনিয়ত দল বেধে মিছিল দিচ্ছে। এতে ছোট বড় সভার মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। কুকুরের কামড়ে আক্রান্ত শিক্ষক মো. রফিকুল ইসলাম জানান, তিনি কুকুরের কামড়ের শিকার হলে তাকে পাশ্ববর্তী ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলা থেকে ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে হয়েছে। আক্রান্ত ব্যাক্তিরা অনেকে এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন সংগ্রহ করতে পারেননি। এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য প.প. কর্মকর্তা ডা: এইচ এম জহিরুল ইসলাম জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোন ভ্যাকসিন সররবাহ করা হয়না। তবে জেলা হাসপাতাল গুলোতে সরকারিভাবে এ ভ্যাকসিনের সাপ্লাই থাকায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের নিয়মানুযায়ী জেলা শহর থেকে ভ্যাকসিন আনতে হয়।