ঢাকা শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১

Motobad news

কারাগারে ঈদের দিন মামুনুল হক’র ‘আহার’

কারাগারে ঈদের দিন মামুনুল হক’র ‘আহার’
ছবি : সংগৃহীত

কারাগারে বন্দিদের জন্য প্রতি ঈদেই বিশেষ খাবারের আয়োজন করা হয়ে থাকে। এই খাবারের তালিকায় থাকে মাছ, মাংস, পোলাও, ডিম, ফিরনি-পায়েস, মিষ্টান্ন ইত্যাদি। এবারও এ ধরনের খাবারের আয়োজন থাকছে দেশের সব কারাগারেই। আর সব বন্দির মতো শুক্রবার (১৪ মে) ঈদুল ফিতরের দিন এই বিশেষ খাবার পেয়েছেন নাশকতা, ধর্ষণসহ বিভিন্ন মামলায় কারাবন্দি হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মামুনুল হকও।

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) থেকে মুক্তির প্রার্থনায় সারাদেশে সীমিত পরিসরে উদযাপিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। সাধারণ মানুষের মতো সীমিত পরিসরেই ঈদের আনন্দে মেতে উঠেছেন কারাবন্দিরাও।


জানা গেছে, সকাল ৭টায় মুড়ি আর পায়েস দিয়ে ঈদ উদযাপন শুরু করেন ঢাকাসহ দেশের ৬৮টি কারাগারের বন্দিরা। প্রতিবার কারাগারের ভেতরের মসজিদে নামাজ আদায়ের পর একসঙ্গে সকালের খাবার খেলেও, এবার নিজ নিজ সেলে নামাজ আদায় করেন তারা, সেখানেই পৌঁছে দেয়া হয় খাবার। কারাবন্দিরা নিজ নিজ সেলের অন্যান্যদের সঙ্গে কুশলাদি বিনিময় করেন।

নতুন বন্দি হিসেবে কারাগারে যাওয়ার পর একটি ওয়ার্ডের আইসোলেশন সেন্টারে রয়েছেন মামুনুল হক। তিনি সেখানে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন। সকালে তাকেও মুড়ি আর পায়েস দেয়া হয়েছে।

জুমার নামাজের পর বন্দিদের জন্য সাদা ভাতের আয়োজন করা হয়েছে। তরকারি হিসেবে দেয়া হয়েছে ডাল, রুই মাছ আর আলুর দম। রাতের বিশেষ আয়োজনে তারা পাবেন পোলাও। এর সঙ্গে থাকবে গরুর মাংস, ডিম, মিষ্টান্ন এবং পান-সুপারি। যারা গরুর মাংস খান না তাদের জন্য থাকবে খাসির মাংস।

অন্য বন্দিদের মতো মামুনুল হককেও একই খাবার দেয়া হয়েছে। রাতে তার জন্যও রয়েছে পোলাও, গরুর মাংস, ডিম, মিষ্টান্ন এবং পান-সুপারি।


এমবি