ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১

Motobad news

হেলমেট দিয়ে পিটিয়ে গৃহবধূর মাথা ফাটিয়ে দিল পুলিশ

হেলমেট দিয়ে পিটিয়ে গৃহবধূর মাথা ফাটিয়ে দিল পুলিশ

ভোলার চরফ্যাশনে থানায় দায়ের করা অভিযোগের আসামি ধরতে গিয়ে আসামি ইউসুব আলীর স্ত্রী জাহেদা বেগমকে মারধর করে হেলমেট দিয়ে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে চরফ্যাশন থানার তিন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে। বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় আবদুল্লাহপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ শিবা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

প্রতিবেশী ও স্বজনরা পুলিশের হামলায় গুরুতর আহত গৃহবধূকে উদ্ধার করে রাতেই চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি করেন। থানা সূত্রে জানা যায়, আটককৃত ইউসুফ পালোয়ানের চাচাতো ভাই জাকিরের স্ত্রী আসমা বেগমকে নির্যাতনের অভিযোগে চরফ্যাশন থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই দায়েরকৃত মামলার আসামি ইউসুফ পালোয়ান নামের ওই ব্যক্তিসহ আরও ৫ জন আসামি রয়েছে। তাদের গ্রেফতার করতেই ওই বাড়িতে পুলিশ সদস্যরা অভিযানে গিয়েছিলেন। 

তবে পুলিশের দাবি, আসামি ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টাকালে ওই নারীর সঙ্গে ঝাপটা-ঝপটিতে বসত ঘরের দরজার সঙ্গে আঘাত লেগে তার মাথা ফেটে যায়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গৃহবধূ জাহেদা জানান, গত বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই গ্রামের তার স্বামী ইউসুব পালোয়ানের বাড়িতে এসআই নাজমুল ইসলামের নেতৃত্বে এএসআই  শহিদুল ও তরিকুলসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য যান। কিছু বুঝে উঠার আগেই পুলিশ তার স্বামী ইউসুফ পালোয়ানকে আটক করেন। 

এ সময় তিনি (জাহেদা বেগম) স্বামীকে আটকের কারণ জানতে চাইলে পুলিশ সদস্যরা গালমন্দ শুরু করেন। তিনি জানান, ওই সময় তার ছেলে শামিম ঘরেই ছিলেন। তার ছেলে শামিমও তার বাবাকে আটকের কারণ জানতে চাইলে ছেলেকেও মারধর করেন।  এ নিয়ে তার সঙ্গে পুলিশ সদস্যদের তর্ক বাধে। তর্কের জের ধরে পুলিশ সদস্যরা তাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করেন। পুলিশ সদস্যদের হাতে থাকা হ্যালমেট দিয়ে তার মাথায় আঘাত করা হয়। 

গৃহবধূর চাচাতো দেবর মামলা মূল আসামি জাকির জানান, গত এক বছর আগে তার স্ত্রী আসমার অনৈতিক কর্মকাণ্ডের জন্য তাকে আদালতের মাধ্যমে তালাক দেয়া হয়েছে। তালাক দেয়ার পরে তার খোরপোষের পাওনা নিয়ে স্থানীয়ভাবে সমঝোতা চলমান রয়েছে। তার তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী আসামা ওই তালাক অস্বীকার করে আসছিলেন এবং তিনি ঢাকাতে কর্মরত থাকার সুযোগে সন্তানদের দেখার অজুহাতে তার তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী আসমা প্রায়ই তার বাড়িতে আসা-যাওয়া করতেন।

তার দুই সন্তানকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করতেন। তিনি জানান, স্বজনরা সন্তানদের দিতে না চাইলে মামলা মোকদ্দমা করার হুমকি-ধামকি দিয়ে চলে যেতেন। বুধবার রাতে তার চাচাতো ভাইকে পুলিশ আটক করে নিয়ে গেলে তিনি জানতে পারেন তার তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী তাকেসহ তার চাচাতো ভাই ইউসুফ পালোয়ান এবং তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। 

এসআই নাজমুল ইসলাম জানান, নারী ও শিশু দমন নির্যাতনের আসামি ইউসুব পালোয়ানকে গ্রেফতার করতে পুলিশের একটি টিম তার বাড়িতে গিয়ে তাকে আটক করলে তার স্ত্রী ও ছেলে আসামি ইউসুফকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় তার স্ত্রীর সঙ্গে ঝাপটা-ঝাপটিতে কীভাবে তার মাথায় আঘাত লেগে ফেটে গিয়েছে তা আমার জানা নাই। 

চরফ্যাশন থানার ওসি মনির হোসেন মিয়া জানান, এক নারীর দায়ের করা মামলার আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালায় এবং ইউসুফ নামের এক আসামিকে আটক করেন। তবে পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ওই নারীকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেয়ার অভিযোগ সঠিক নয়।
 


এইচকেআর