ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১

Motobad news

অনলাইনে চাকরির নামে বরিশালে প্রতারণার ফাঁদ

অনলাইনে চাকরির নামে বরিশালে প্রতারণার ফাঁদ

বরিশালে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে নামে বেনামে অনলাইন ভিত্তিক কয়েকটি চক্র। কেউ কেউ ভূয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামে ভূয়া চাকরির বিজ্ঞাপন দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা। প্রতারক চক্রে ফাঁদে ফেসে অনেকেই হচ্ছেন সর্বশান্ত। 

করোনায় কর্মসংস্থান না বাড়ার কারণে চাকরি যেন সোনার হরিণ। শিক্ষিত বেকাররা চাকরির খবর পাওয়া মাত্র হন্যে হয়ে ছুটছে। আর এ সুযোগে একশ্রেণির প্রতারক চাকরির নামে অনলাইনে প্রতারণার পসরা সাজিয়ে ওত পেতে আছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা  তৎপর না হওয়ায় নির্বিঘ্নে চালছে প্রতারক চক্রের তৎপরতা। 


গত বৃহস্পতিবার "জবস ইন বরিশাল ডিভিসন" নামে ১১ হাজার সদস্যের একটি ফেসবুক গ্রুপে পপুলার ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের নামে ভূয়া নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয় আহমদ বাশার চৌধুরী নামে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি। তার অনলাইন বিজ্ঞাপনের ডাকে সাড়া দিয়ে বেশ কয়েকজন হয়েছেন প্রতারিত। চাকরি দেয়ার নাম করে রেজিস্টেশন ফি বাবদ প্রতারকরা হাতিয়ে নেয় টাকা। প্রতারক আহমদ বাশার চৌধুরী চাকরি প্রত্যাশীদের  ইনবক্সে যোগাযোগ করতে বলে বিজ্ঞপ্তিতে লেখেন, Popular Pharmaceutical Ltd.(পপুলার ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেড) বেতন স্কেলঃ ১২, ১৪, ১৬, ২০ হাজার টাকা। শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ জেএসসি/এসএসসি/এইচএসসি, ডিউটিঃ ৮ ঘন্টা।"

প্রতারকদের ফাঁদে পড়া চাকরি প্রত্যাশী ফেরদাউস হাসান বলেন, ফেসবুক গ্রুপে বহু জব দেয়ার লোক আছে আবার চাকরি খোঁজারও লোক আছে। কিন্তু অনেকেই ভুল লোকের ফাঁদে পরে টাকা দেয়। পপুলারের জব দেখেই আমার সন্দেহ হয়। পরে  খোঁজ নিলাম এবং তার প্রফাইল চেক করলাম।সবই ভূয়া মনে হইছে। তার সাথে ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে কথা বলার এক পর্যায়ে রেজিস্টেশন ফি বাবদ টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে।

দেশে চাকরি প্রার্থীর সংখ্যা বেশি আর কর্মসংস্থানের সুযোগ কম হওয়ায় অনলাইনে চটকদার বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রতারিত হচ্ছেন অনেকে। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, শিক্ষিত বেকারের হার দেশের জন্য খুবই উদ্বেগজনক। চাকরি পাওয়ার জন্য যে ধরনের দক্ষতা ও যোগ্যতা দরকার, সে ধরনের শিক্ষা সবাই পাচ্ছে না। এছাড়া বাংলাদেশে শিক্ষা খাতে বিনিয়োগ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সর্বনিম্ন। মানসম্মত শিক্ষা আর দক্ষ লোকের অভাব। যে কারণে কোথাও কোনো সুযোগ সৃষ্টি হলে সে তথ্য যাচাই না করে হুমড়ি খেয়ে পড়ে শিক্ষিত তরুণরা। এজন্য প্রতারকরা সহজেই প্রতারণার সুযোগ পাচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, এ খাতে বিনিয়োগ আরো বাড়াতে হবে। মানবসম্পদ উন্নয়নে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে হবে। বাস্তবতার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে উচ্চশিক্ষার কারিকুলাম নির্ধারণ করতে হবে। কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মনজুর রহমান মতবাদকে জানান, নিয়মিত আমরা ফেসবুক মনিটরিং করি। চাকরির দেয়ার নামে প্রতারণার জন্য আমাদের কাছে কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই ধরনের প্রতারকদের সতর্ক করে তিনি বলেন ফেসবুকের ফেইক আইডি থেকে সবধরনের কার্মকাণ্ড তদন্ত সাপেক্ষে বেরিয়ে আসে এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কঠিন শাস্তির আওতায় তাদের নিয়ে আসা হবে।


এসএমএইচ