ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১

Motobad news

অক্সিজেন প্লান্ট না থাকায় বিপাকে আমতলীর করোনা আক্রান্তরা

অক্সিজেন প্লান্ট না থাকায় বিপাকে আমতলীর করোনা আক্রান্তরা

বরগুনার আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট না থাকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের হাইফ্লোতে অক্সিজেন সরবরাহ করা যাচ্ছে না। এতে জীবন নিয়ে শঙ্কায় থাকা রোগীরা দ্রুত হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট নির্মাণের দাবী জানিয়েছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানাগেছে, গত ৪ মাসে ওই উপজেলায় প্রায় ২ হাজার ৫০০ জন মরনঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে আক্রান্ত অধিকাংশ রোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা ইউনিটে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন। কিন্তু গত ১ মাস ধরে উপজেলায় করোনার আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ২০ শয্যার করোনা ইউনিটে ১৬ জন রোগী ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

 কিন্তু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সেন্ট্রালঅক্সিজেন প্লান্ট না থাকায় সিলিন্ডারের অক্সিজেন ব্যবহার করতে হচ্ছে করোনা রোগীদের। এতে আক্রান্ত রোগীরা প্রয়োজনীয় অক্সিজেন পাচ্ছে না। হাইফ্লোতে অক্সিজেন সরবরাহ না হওয়ায় রোগীরা তাদের জীবন নিয়ে শঙ্কায় আছেন। দ্রুত হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লান্ট নির্মাণের দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগী রোগীরা।

গত ৫ মাস পূর্বে একটি বে-সরকারী কোম্পানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লাণ্ট নির্মাণের আগ্রহ প্রকাশ করে। কিন্তু মন্ত্রনালয়ের অনুমতি না থাকায় ওই কোম্পানীটি প্লাণ্ট নির্মাণ করতে পারেনি। গত ৩ মাস পূর্বে উপজেলা স্বাস্থ্য প্রশাসক ডাঃ আবদুল মুনয়েম সাদ সেন্টাল প্লাণ্ট নির্মাণের অনুমতি চেয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন। এখনো ওই আবেদন মন্ত্রণালয়ে ঝুলে আছে।

সরেজমিনে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, করোনা ইউনিটে ভর্তি রোগীরা সকলেই শ্বাসকষ্ট লাঘবে সিলিন্ডারের অক্সিজেন ব্যবহার করছেন। এতে প্রয়োজনীয় অক্সিজেন পাচ্ছেন না বলে নাম প্রকাশে একাধিক রোগীরা জানান। তারা আরো জানান, সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লাণ্ট হলে অতিমাত্রায় অক্সিজেন পাওয়া যেত তাহলে আমাদের এতো কষ্ট পেতে হতো না। তারা দ্রুত হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লাণ্ট নির্মাণের দাবী জানান।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আবদুল মুনয়েম সাদ বলেন, সেন্ট্রালঅক্সিজেন প্লাণ্ট নির্মাণ করা হলে রোগীদের উচ্চ মাত্রায় অক্সিজেন সরবরাহ করা যেত এবং রোগীদের শ্বাসকষ্ট লাঘব হতো। একটি বে-সরকারী কোম্পানী অক্সিজেন প্লাণ্ট নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিল কিন্তু মন্ত্রণালয়ের অনুমতি না থাকায় নির্মাণ করতে পারেনি। তিনি আরো বলেন, সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্লাণ্ট নির্মাণের অনুমিত চেয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ে আবেদন করেছি। অনুমতি পেলেই বেসরকারী কোম্পানীর সাথে যোগাযোগ করে নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হবে।


 


এমবি